Spread the love

গুগল ইন্টারনেটভিত্তিক সেবা পণ্যে বিশেষায়িত একটি অমেরিকান বহুজাতিক কোম্পানি। দুনিয়াজুড়ে কোটি কোটি মানুষ ব্যবহার করছেন এই গুগল। এটি এখন শুধুই সার্চ ইঞ্জিন নয়, এক বিশাল প্রযুক্তি কোম্পানি। গুগল আমাদের ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ এবং অভ্যাস সম্পর্কে জেনে ফেলে- কিন্তু আমরা গুগল সম্পর্কে কতটা জানি? গুগল সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য নিয়ে আমাদের আজকের লেখা।

গুগল সম্পর্কে আমাদের জানা-অজানাঃ

  • গুগল (Google) শব্দটি মূলত একটি গাণিতিক সংখ্যা “Googol” থেকে উদ্ভূত হয়েছে যার মানে ১ এর পরে ১০০টি শূন্য।
  • ১৯৯৬ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দু’জন পিএইচডি কোর্সের ছাত্র ল্যারি পেজ এবং সার্গেই ব্রিন এর কাজ শুরু করেন। ১৯৯৮ সালের ৪ সেপ্টেম্বর দুই বন্ধু একটি প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে গুগলের প্রতিষ্ঠা করেন। 
  • গুগলের নাম গুগোল (Googol) হওয়ার কথা ছিল। এটি একটি গাণিতিক পরিভাষা। অর্থাৎ এক (১) সংখ্যা লিখে তার পরে ১০০টি শূন্য বসালে যে বৃহৎ সংখ্যাটি পাওয়া যায় সেটিই হলো গুগোল। এটির নাম গুগোল রাখার কারণ হচ্ছে, অনেক তথ্য অর্গানাইজ করতে পারবে এমন লক্ষ্য নিয়েই কিছু বানাতে চেয়েছিলেন ল্যারি পেজ ও সার্গেই ব্রিন। তবে ভুল বানানের কারণে গুগোল হয়ে যায় আজকের গুগল।

  • ডোমেইন নাম গুগল নিবন্ধিত করা হয় ১৫ই সেপ্টেম্বর, ১৯৯৭ সালে।
  • ২০০৪ সালের ১৯ আগস্ট এটি পাবলিক লিমিটেড হিসেবে যাত্রা শুরু করে।
  • গুগলের আদি নাম হচ্ছে ‘ব্যাকরাব (Backrub)’
  • গুগলের হেডকোয়ার্টার পরিচিত ‘গুগলপ্লেক্স’ নামে এবং এটি অবস্থিত ক্যালিফোর্নিয়ার সিলিকন ভ্যালিতে।

  • আজকের যুগের স্মার্টফোনের সংজ্ঞা বদলে দেওয়া অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমও গুগলের মালিকানাধীন। এই অপারেটিং সিস্টেমের জন্য রয়েছে গুগলের অ্যাপস স্টোর যেখানে লাখ লাখ অ্যাপ্লিকেশন বিনা মূল্যে ব্যবহার করা যায়।
  • গুগলের সব কিছুই ব্যবসা নয়। সেখানে অনেক মজার বিষয়ও আছে। যেমন ‌’askew’ এই শব্দটি গুগলে লিখে দেখতে পারেন।
  • গুগল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি বহুজাতিক ইন্টারনেট এবং সফটয়্যার কোম্পানি। বিশেষভাবে গুগল সার্চ ওয়েভের বৃহত্তম এবং শক্তিশালী সার্চ ইঞ্জিন। গুগল এর প্রধান কাজ হচ্ছে পৃথিবীর যাবতীয় তথ্য সুবিণ্যস্ত করা এবং সেগুলো সর্বসাধারণের জন্য উপযোগী করে প্রকাশ করা। এর মূলমন্ত্র হলো Don’t be evil.
  • গুগল সারা পৃথিবীতে বিভিন্ন ডেটা সেন্টারে প্রায় এক মিলিয়ন সার্ভার চালায়। এক বিলিয়নের ওপর সার্চের অনুরোধ এবং প্রায় ২৪ পেটাবাইট ডেটা প্রক্রিয়াকরণ করে।
  • এক পর্যায়ে ল্যারি পেজ ও সের্গেই ব্রিন গুগলকে বিক্রি করে দিতে চেয়েছিলেন। তখন ইয়াহু এটি কিনতে অস্বীকৃতি জানায়। ২০০২ সালে যখন ৩ বিলিয়ন ডলারে ইয়াহু গুগলকে কিনতে চায়, তখন গুগল রাজী হয়নি। বর্তমানে গুগলের মূল্য ৪০০ বিলিয়ন ডলারের বেশি।

  • ২০০১ সালে চালু করা হয় গুগল ইমেজ সার্চ- যার অনুপ্রেরণা ছিল ২০০০ সালের গ্র্যামি পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে জেনিফার লোপেজের পরা সবুজ পোশাক। এটি গুগলের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চে পরিণত হয়েছিল।
  • প্রথমদিকে প্রতি সেকেন্ডে ৩০-৫০টি পেজ প্রসেস করতে পারত গুগল। বর্তমানে সেকেন্ডে কয়েক মিলিয়ন পেজ প্রসেস করতে পারে এই সার্চ ইঞ্জিন।
  • গুগল সার্চে ১৫ শতাংশ অনুসন্ধানই হচ্ছে একেবারে নতুন, যা আগে কখনও সার্চ করা হয়নি। গুগল এখন শুধু একটি সার্চ ইঞ্জিন নয়। ভবিষ্যতে এখানে থাকবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, স্ট্রিমিং-ভিত্তিক গেম খেলার ব্যবস্থা, এমনকি ড্রাইভারবিহীন গাড়ি।

  • গুগলের হেডকোয়ার্টার পরিচিত ‘গুগলপ্লেক্স’ নামে এবং এটি অবস্থিত ক্যালিফোর্নিয়ার সিলিকন ভ্যালিতে। গুগলের হেডকোয়ার্টারটি বিশাল এবং এর ভেতরে অনেক সবুজ জায়গা আছে। এখানে ঘাস কাটার জন্য লন-মোয়ার মেশিন ব্যবহার করা হয় না। এ জন্য গুগল বাইরে থেকে ছাগল ভাড়া করে নিয়ে আসে।
  • গুগলে প্রথম নিয়োগপ্রাপ্ত ব্যক্তিটি ছিল স্ট্যানফোর্ডের ফেলো পিএইচডি ডিগ্রি প্রাপ্ত একজন ছাত্র।
  • গুগলের আসলে ৬টি জন্মদিন আছে। কিন্তু তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে শুধু ২৭ সেপ্টেম্বরকেই তারা জন্মদিন হিসেবে পালন করবে।
  • ২০০৬ সালে গুগল পরিবারের সদস্য হয় ইউটিউব। সে সময় দেড়শ’ কোটি ডলারেরও বেশি দামে ইউটিউবকে কিনে নেয় গুগল। এখন ইউটিউবের মাসিক ব্যবহারকারী প্রায় ২০০ কোটি। প্রতি মিনিটে ইউটিউবে আপলোড হয় ৪০০ ঘণ্টার ভিডিও।

  • প্রতি সেকেন্ডে গুগলে প্রায় ৪০ হাজার সার্চ করা হচ্ছে। গুগলের প্রতিটি সার্চের জন্য যে পরিমাণ কম্পিউটিং দরকার হয়, তা অ্যাপোলো ১১-কে চাঁদে পাঠানোর কাজে ব্যবহৃত কম্পিউটিংয়ের চেয়েও বেশি!
  • অফিসের বাইরে বার্তা যোগাযোগের মাধ্যমে প্রথম গুগল ডুডল চালু হয় ১৯৯৮ সালের ৩০ আগস্ট। যখন ল্যারি আর সের্গেই একটি উৎসবে নেভাদা গিয়েছিলেন, তখনি প্রথম এই আইডিয়াটি আসে। এরপর থেকেই ডুডল গুগলের একটি ঐতিহ্যে পরিণত হয়। বিশেষ বিশেষ দিন বা ব্যক্তিত্বের উপলক্ষে বিশেষভাবে করা শিল্প গুগলের চেহারায় ভেসে ওঠে।
  • প্রতিষ্ঠার শুরুতে মাত্র ৪০ গিগাবাইট স্টোরেজ ব্যবহার করত গুগল। আর এখন এর ইনডেক্সে ১০০ মিলিয়ন গিগাবাইটের বেশি ডেটা রয়েছে।
  • ২০২০ সালের মধ্যে সারা পৃথিবীর প্রায় ১২৭ মিলিয়ন বই স্ক্যান করে নিজস্ব ডেটাবেইসে সংযুক্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছে গুগল। 
  • গুগল হোমপেজ দেখা যায় প্রায় নব্বইটি ভাষায়। এর ভেতরে কিছু অদ্ভুত ভাষাও আছে। যেমন জনপ্রিয় মুভি সিরিজ স্ট্রারট্রেক-এ ব্যবহৃত ‘ক্লিংওন’ ভাষা কিংবা দ্য মাপেট সিনেমায় ব্যবহৃত ‘বর্ক বর্ক বর্ক’ ভাষা।
  • গুগল সারা পৃথিবীতে বিভিন্ন ডেটা সেন্টারে প্রায় এক মিলিয়ন সার্ভার চালায়ও ৫.৪ বিলিয়নের বা ৫০০ কোটির উপর অনুসন্ধানের অনুরোধএবং প্রায় ২৪ পেটাবাইট ব্যবহারকারী কর্তৃক তৈরী ডেটা প্রক্রিয়াকরণ করে প্রতিদিন।

  • গুগলে যারা কাজ করেন, তারা সবাই নিজের কুকুর সঙ্গে করে নিয়ে আসতে পারে। তবে এটা প্রমাণ করতে হবে যে, তারা অফিস নোংরা করবে না।
  • গুগল হচ্ছে প্রথম বড় প্রযুক্তি কোম্পানি যারা তাদের কর্মচারীদের বিনামূল্যে খাবার পরিবেশন করে।
  • জিমেইল, গুগল ম্যাপস, গুগল ড্রাইভ, গুগল ক্রোম, এসবের বাইরে ২০১০ সাল থেকে গুগল প্রায় প্রতি সপ্তাহেই একটি করে কোম্পানির মালিক হচ্ছে। অ্যান্ড্রুয়েড, ইউটিউব, ওয়ায, অ্যাডসেন্স মত এরকম আরো ৭০টি কোম্পানি রয়েছে গুগলের।
  • বিখ্যাত মোটরোলা কোম্পানী সম্পূর্ণরূপে গুগল মালিকানাধীন।
  • কর্মরত অবস্থায় কোন কর্মী মারা গেলে গুগল তার স্ত্রী বা স্বামীকে যথেষ্ট অর্থ প্রদান করে। কেউ মারা গেলে তার পরিবার ১ যুগ পর্যন্ত বেতনের অর্ধেক পেতে থাকবেন।
  • গুগলের কর্পোরেট নীতিতে আছে “তুমি কোন খারাপ কাজ ছাড়াই টাকা কামাতে পারো”, “কোন স্যুট ছাড়াই তুমি গুরুতর হতে পারো” এবং “কাজ হতে হবে প্রতিদ্বন্ধিতাপূর্ন এবং প্রতিদ্ধন্ধিতা হতে হবে মজাদার” ইত্যাদি।

আরও পড়ুন, আপনার কাজে ব্যবহৃত বেস্ট কিছু ওয়েবসাইট সম্পর্কে জেনে নিন।


Spread the love